আজ অমর একুশে,শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা Reviewed by Momizat on . আজ ২১শে ফেব্রুয়ারী, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। আজ বাংলাদেশীদের মুখে উচ্চারিত হবে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’। মায়ের ভাষার মর আজ ২১শে ফেব্রুয়ারী, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। আজ বাংলাদেশীদের মুখে উচ্চারিত হবে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’। মায়ের ভাষার মর Rating: 0
You Are Here: Home » স্পেশাল খবর » আজ অমর একুশে,শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা

আজ অমর একুশে,শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা

21-February-615x340আজ ২১শে ফেব্রুয়ারী, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। আজ বাংলাদেশীদের মুখে উচ্চারিত হবে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’।

মায়ের ভাষার মর্যাদা রক্ষায় ১৯৫২-এ জীবন দিয়েছিল সালাম, বরকত, জাব্বার, রফিক, শফিউল্লাহসহ নাম না জানা কত ভাষা সেনানী। তাদের রক্তের বিনিময়েই আজকে মুখে বাংলা ভাষা। কথা বলি বাংলা ভাষায়। রচিত হচ্ছে হাজারো গান, কবিতা, নাটক, উপন্যাস আর অজস্র কথামালা।

আজকের দিনটা বীর ভাষা সৈনিকের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো জন্য। আজ অমর ২১শে ফেব্রুয়ারি। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। দিনটির ৬২তম বার্ষিকী। তবে তা কেবল বাংলাদেশে নয়। বিশ্বের সব প্রান্তে আজ পালিত হচ্ছে বীরের রক্তস্রোত আর মায়ের অশ্রুভেজা অমর একুশে।

ইতিহাস

মুখের ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করতে আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো রাজপথের ইতিহাস। প্রাণ দিয়ে সেই ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল বাংলার সূর্যসন্তান, ভাষাসৈনিকেরা। এদিন এখন শুধু বাঙালির নয়। সবার জন্য পালনীয়। ৬২ বছর আগের এই দিনে বাংলার সংগ্রামী ছেলেরা যে ত্যাগ ও গৌরবগাথা রচনা করেছিলেন তারই পথ ধরে আমরা মুখোমুখি হই স্বাধীনতা সংগ্রামে। রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত হয় স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ। লাল সবুজের পতাকা।

বাঙালির রক্তস্নাত ভাষা আন্দোলনের স্বীকৃতি দিয়ে জাতিসংঘের সহযোগী সংস্থা ইউনেস্কো ১৯৯৯ সালের ১৭ই নভেম্বর ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ঘোষণা করে। এরপর থেকেই যথাযোগ্য মর্যাদায় সারা বিশ্বে একযোগে পালিত হয়ে আসছে দিনটি।

বিশ্বের সব ক’টি দেশে পালিত হবে মহান একুশে। মহান ভাষা দিবস উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, ১৯ দলীয় জোটের শীর্ষ নেত্রী ও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া পৃথক বাণী দিয়েছেন।

১৯৫২ সালের এই দিনে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী ঘোষিত ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মায়ের ভাষা প্রতিষ্ঠার দাবিতে আন্দোলনরত বাঙালি রাজপথ রক্তে রঞ্জিত করে। উর্দুকে রাষ্ট্রভাষা করার প্রতিবাদ কর্মসূচির অংশ হিসেবে ২১শে ফেব্রুয়ারিকে সামনে রেখে হরতালের প্রস্তুতি চলতে থাকে। সরকার ২০শে ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ছয়টায় একটানা এক মাসের জন্য ঢাকা জেলার সর্বত্র হরতাল, সভা, মিছিলের ওপর ১৪৪ ধারা জারি করে। এসব নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ছাত্ররা দলে দলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জমায়েত হয়। ঐতিহাসিক আমতলায় ছাত্রদের সভা থেকে ১৪৪ ধারা ভঙ্গের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পরিকল্পনা করা হয়, চারজন চারজন করে মিছিল নিয়ে বের হওয়ার। ছাত্ররা মিছিল শুরু করলে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে ট্রাকে তুলতে থাকে। বেলা তিনটায় গণপরিষদের অধিবেশনের আগেই শুরু হয়ে যায় ছাত্র-পুলিশ সংঘর্ষ। বিকাল চারটায় পুলিশ ঢাকা মেডিকেল কলেজের সামনে ছাত্রদের ওপর গুলি চালায়। বুলেট কেড়ে নেয় জব্বার ও রফিকের প্রাণ। গুলিবিদ্ধ আবুল বরকত রাত পৌনে আটটায় হাসপাতালে মারা যান। তাদের মৃত্যু সংবাদে বাংলা ভাষার প্রাণের দাবি সারা দেশে স্ফুলিঙ্গের মতো ছড়িয়ে পড়ে। এরপর থেকেই একুশে ফেব্রুয়ারি অমর ভাষা দিবস হিসেবে পালনের রেওয়াজ চালু হয়। সারা দেশে তৈরি হয় অসংখ্য শহীদ মিনার।

© 2011-2013 Powered By BDTRAVELNEWS.COM

Read previous post:
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী জনাব রাশেদ খান মেননের সঙ্গে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল হোটেল অ্যাসোসিয়েশনের সাক্ষাত

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী জনাব রাশেদ খান মেননের সঙ্গে সম্প্রতি সচিবালয়ে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল হোটেল অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা সাক্ষাত করেন।...

Close
Scroll to top