এভারেস্টজয়ীদের তালিকায় অনুপস্থিত মুসার নাম Reviewed by Momizat on . এভারেস্টজয়ীদের নিয়ে প্রকাশিত নেপালের পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং নেপাল মাউন্টেইনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশনের প্রকাশনা ‘নেপাল পর্বত’ এ নাম নেই মুসা ইব্রাহিমের। এভারেস্টজয়ী প্ এভারেস্টজয়ীদের নিয়ে প্রকাশিত নেপালের পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং নেপাল মাউন্টেইনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশনের প্রকাশনা ‘নেপাল পর্বত’ এ নাম নেই মুসা ইব্রাহিমের। এভারেস্টজয়ী প্ Rating: 0
You Are Here: Home » ভ্রমন কাহিনী » এভারেস্টজয়ীদের তালিকায় অনুপস্থিত মুসার নাম

এভারেস্টজয়ীদের তালিকায় অনুপস্থিত মুসার নাম

Musa Ibrahimএভারেস্টজয়ীদের নিয়ে প্রকাশিত নেপালের পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং নেপাল মাউন্টেইনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশনের প্রকাশনা ‘নেপাল পর্বত’ এ নাম নেই মুসা ইব্রাহিমের।

এভারেস্টজয়ী প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে মুসা ইব্রাহীম দাবি করলেও তার এই দাবির সঙ্গে বাংলাদেশের অনেকেই ভিন্নমত পোষণ করে আসছেন।এই বিষয়টি নিয়ে আদালতে একটি মামলা চলার মধ্যেই শনিবার বেসরকারি টেলিভিশন একাত্তরের এক প্রতিবেদনে ‘নেপাল পর্বত’  এর তালিকায় মুসার নাম না থাকার বিষয়টি প্রকাশিত হয়।

তালিকায় এভারেস্টজয়ী প্রথম বাংলাদেশি নারী-পুরুষ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে এম এ মুহিত ও নিশাত মজুমদারকে।২০১০ সালে হিমালয় চূড়ায় ওঠার সপক্ষে মুসা যে ছবি ও প্রমাণাদি দেখিয়েছিলেন, তা নিয়ে সন্দেহ পোষণ করে আসছেন মুহিত; যিনি তার এক বছর পর ওঠেন এভারেস্টে।

সম্প্রতি চন্দ্রাবতী একাডেমী প্রকাশিত ‘সকাল বেলার পাখি’ সঙ্কলন গ্রন্থে বাংলা মাউন্টেইনিয়ারিং অ্যান্ড ট্র্যাকিং ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ইনাম আল হক এক নিবন্ধে মুহিতকে বাংলাদেশি প্রথম এভারেস্টজয়ী হিসেবে উল্লেখ করেন।

© 2011-2013 Powered By BDTRAVELNEWS.COM

Read previous post:
সংসদ ভবনের ঐতিহ্য নাকি ঠিকাদারের ঠিকাদারি

সরকারের এক মন্ত্রণালয় জাতীয় সংসদ ভবনকে আন্তর্জাতিক ঐতিহ্য ঘোষণার জন্য জাতিসংঘের ইউনেস্কোতে যখন চেষ্টা চালাচ্ছে, তখন সরকারের আরেক মন্ত্রণালয় চাইছে...

Close
Scroll to top